জানা-অজানা

এপ্রিল ফুল কি? কীভাবে এর প্রচলন হল? পহেলা এপ্রিল

5/5 - (1 vote)

প্রতিবছর এপ্রিল মাসের প্রথম দিন এপ্রিল ফুল পালন করা হয়। এই দিনটিতে পরিচিত বন্ধু বা আত্মীয়স্বজনদের বোকা বানান হয়। তাই এই দিনটিকে অনেকে বোকা বানানোর দিন বলে অভিহিত করে থাকেন।

এক নজরে এপ্রিল ফুল

অন্য নামসকলকে বোকা বানানোর দিন
ধরণসাংস্কৃতিক
পালনকৌতুক
তারিখ ১লা এপ্রিল
প্রথম পালিত হয়১৫৬৪ সালে ফ্রান্সে

কীভাবে এপ্রিল ফুলের প্রচলন হলো?

প্রিতিবেশীদের বোকা বানানোর জন্য এই দিনটি নির্ধারিত। এবং এই সর্বত্র স্বকৃত। রোমান হিলারিয়া উৎসব, ভারতের হোলি উৎসব এবং এর মধ্যযুগীয় ফুল ফিস্ট উৎসবের সাথে এপ্রিল ফুলস ডে যোগসূত্র আছে।

ইরানে, পার্সিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে নতুন বছরের ১৩ তম দিনটি আনন্দের সাথে পালিত হয়। এই দিনটি গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে ১ এবং ২শে এপ্রিলের সাথে মিলে যায়। ঐতিহাসিকদের মতে, ১৫৬৪ সালে ফ্রান্সে নতুন ক্যালেন্ডার চালু হলে এপ্রিল ফুল দিবস তৈরি করা হয়। কিছু লোক ১লা এপ্রিলের পরিবর্তে ১লা জানুয়ারিকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে বিবেচনা করার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছিল, যা পুরানো ক্যালেন্ডারে ছিল। যারা পহেলা এপ্রিলকে নতুন বছরের প্রথম দিন হিসেবে উদযাপন করতে থাকে তাদের প্রতি বছর সেই দিনটিকে উপহাস করা হয় এবং বোকা বলা হয়। ফ্রান্সে, এপ্রিল ফুল দিবসকে বলা হয় “পয়সন ডি’এভ্রিল” এবং এটি মাছের সাথে সম্পর্কিত। এপ্রিলের শুরুতে মাছের ডিম ফুটে বাচ্চা মাছকে সহজেই বোকা বানানো হয়, তাই এদেরকে বলা হয় ‘এপ্রিল ফিশ’। সেদিন শিশুরা নিজেদের অজান্তেই অন্য শিশুদের পিঠে কাগজের মাছ ঝুলিয়ে দেয়। যখন অন্যরা লক্ষ্য করে, তারা চিৎকার করে বলে “পয়সন ডি’এভ্রিল!” কবি চসারের ক্যান্টারবারি টেইলস(১৩৯২) বইয়ের নানস প্রিস্টস টেইল এ এই দিনের কথা খুজে পাওয়া যায়।

এপ্রিল ফুলের ইতিহাস

যদিও এপ্রিল ফুলের উৎপত্তি অজানা, এটিকে ঘিরে অনেক তত্ত্ব রয়েছে। চসারের “ক্যান্টারবেরি টেলস” (1932) রূপকথার গল্প “নান’স প্রিস্ট’স টেল” থেকে সিন মার্চ বিগান তিরিশ দিন এবং দুই তারিখ পর্যন্ত। আধুনিক পণ্ডিতরা বিশ্বাস করেন যে পাণ্ডুলিপি থেকে কিছু অনুলিপি ত্রুটি ছিল এবং চসার আসলে সিন মার্চ ওয়াজ গন লিখেছিলেন। অর্থাৎ তিনি বুঝাতে চেয়েছিলেন মার্চের পরের ৩২ দিন অর্থাৎ ২মে । ১৩৮১ সালের এই দিনে ইংল্যান্ডের রাজা দ্বিতীয় রিচার্ড এবং বোহেমিয়ার অ্যান বিয়ে করেছিলেন। পাঠক লাইনটি পড়ে ভুল করে ধরে নিলেন তারিখটি “৩২ মার্চ” অর্থাৎ ১লা এপ্রিল।

ইতিহাস যাই হোক, মূল কথা হল এপ্রিলের প্রথম দিন প্রাঙ্ক করে মানুষকে বোকা বানানো হয়। পৃথিবীর অনেকে দেশেই এপ্রিল ফুল ডে বেশ জনপ্রিয় একটি সংস্কৃতি। বাংলাদেশেও এটি পালন করা হয়। শুধু বাংলাদেশ নয় এশিয়ার অনেক দেশেই পালিত হয় দিনটি।


 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

মন্তব্য করুন

Related Articles

Back to top button