Uncategorized

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন

Rate this post
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বর্ণনা দিয়ে একটি প্রতিবেদন তৈরি কর।
 তারিখ : ৪ মার্চ ২০২০ 
বরাবর প্রধান শিক্ষক
 … স্কুল ও কলেজ, ঢাকা। 
বিষয় : এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান সম্পর্কে প্রতিবেদন। 
সূত্র : আদেশ নং- ঢা.সক, ৫৪/১৬ 

জনাব,
আপনার আদেশক্রমে (আদেশ নং- ঢা.সক, ৫৪/১৬; ৩ মার্চ ২০২০) সুষ্ঠু তথ্য প্রদান করে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠানের বিবরণ দিয়ে একটি প্রতিবেদন নিচে উপস্থাপন করছি।

… স্কুল ও কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান উদযাপিত

গত ২ মার্চ যথাযােগ্য মর্যাদায় … বিদ্যালয়ের আয়ােজনে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। বিদায় অনুষ্ঠান পালনের জন্য দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। স্কুল-শিক্ষকদের উদার মনােবৃত্তি ও সহযােগিতা এবং ছাত্র-ছাত্রীর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের কারণে, বিদায় অনুষ্ঠানটি স্বকীয়তায় সমুজ্জ্বল হয়ে ওঠে। এবারের বিদায় অনুষ্ঠান ছিল খুবই বৈচিত্র্যপর্ণ। বিদায় অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে মিলনায়তন কক্ষটি সুন্দর করে সাজানাে। শিক্ষার্থী মিলনায়তন হল রুমে বিদায় অনুষ্ঠানটি শুরু হয় সকাল ১০.০০ টায়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন সহকারী প্রধান শিক্ষক। তিনি বিদায়ী ছাত্রদের উদ্দেশ্যে স্কুলের ঐতিহ্য তুলে ধরে তাদের জীবন গঠনের পথ নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন এবং পরীক্ষার ফলাফলের ওপর তাদের ভবিষ্যৎ উচ্চ শিক্ষার সেতু বন্ধন রচনা করার জন্য আশীর্বাদ করেন। এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা পাঠ করে শােনান- দশম শ্রেণির ছাত্রী মিথিলা জাহান মম। বিদায়-সংবর্ধনা পাঠে সবাই আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়ে। বিদায়ী শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকেও অনেকে তার অভিব্যক্তি ব্যক্ত করে। অভিভাকদের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখা হয়। বিদায়-সংবর্ধনা পাঠ শেষে সকল শিক্ষার্থীর হাতে একটি করে কলম ও স্বারক উপহার তুলে দেন প্রধান শিক্ষক। সবশেষে প্রধান শিক্ষক সমাপনী বক্তব্য রাখেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন- “ঐতিহ্যবাহী এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তােমাদের পদস্পর্শে একদিন মুখরিত হয়ে উঠেছিল। যে পথ একদিন তােমাদের নিয়ে এসেছিল এই স্কুলের আঙিনায়, আজ সেই পথই আবার তােমাদের ডাক দিয়েছে- ‘হাঁকিছে ভবিষ্যৎ, হও আগুয়ান।’ তাই আজ বেজে উঠেছে বিদায়ের বেদনার করুণ সুর। সেই সুর যেন বলছে ‘ভুবনের ঘাটে ঘাটে, এক ঘাটে লও বােঝা, শূন্য করে দাও অন্য ঘাটে।’ শুভ হােক তােমাদের ভবিষ্যৎ। এই স্কুলে তােমাদের স্মৃতিমধুর অনেকগুলাে দিন কেটেছে। তােমাদের প্রাণােচ্ছল পদভারে এই ফুলের আঙিনা ছিল মুখরিত। কঠোর অধ্যবসায়, নিরলস শ্রম ও আন্তরিক আগ্রহে নিজেদের আলােকিত মানুষ হিসেবে গড়ার সাধনায় তােমরা সর্বদাই সচেষ্ট ছিলে। আজ ভবিষ্যতের সিঁড়িতে তােমরা যখন প্রজ্ঞার ছায়া ফেলতে যাচ্ছে তখন বলি,–এই স্কুলের মৃতিময় দিনগুলাে আর প্রিয় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ঐকান্তিক অবদানের কথা যেন তােমরা ভুলে না যাও। এই বিদ্যানিকেতনের অভিজ্ঞতা ও ঐতিহ্য যেন হয় তােমাদের ভবিষ্যৎ গড়ে তােলার প্রেরণা। তােমাদের সঙ্গে আমাদের স্নেহসিক্ত প্রীতিময় বন্ধন যেন অটুট থাকে আজীবন। তােমরা নতুন শতাব্দীর অগ্রপথিক। তােমরা দুর্গম পথের দুঃসাহসী অভিযাত্রী দল। উচ্ছল তারুণ্যের প্রাচুর্য তােমাদের মধ্যে বিরাজমান। তােমরা বন্ধুর পথে অগ্রসরমান- লক্ষ্য অর্জনে অটল, অবিচল। তােমরা অফুরন্ত প্রাণশক্তির অধিকারী। তােমাদের প্রাণের সেই দীপ্তিমান শিখাই চলার পথে শক্তি দান করবে। নদীর বহমান ধারা যেমন সামনের পথ কেটে চলে, অনুর্বর মাঠ-প্রান্তরকে ফুলে, ফসলে ভরে তােলে, তােমরাও তেমনি সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ নির্মাণের অঙ্গীকার বহন কর। পূর্ব আকাশের রক্তিম সূর্য তােমাদের প্রাণের ঔজ্জ্বল্যে দীপ্যমান। তােমরা দেশের আগামীদিনের কর্ণধার। তােমাদের সততা, অধ্যবসায় ও কর্তব্যনিষ্ঠা, সংযত আচরণ, বিনম্র মনােবৃত্তি, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যাভিসার, গভীর পাঠানুরাগ তােমাদের দান করুক মহত্তর চারিত্রিক সম্পদ। মনে রেখাে, লাখাে শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমাদের দেশ আজ স্বাধীন। জাতি আজ প্রত্যাশা করে দুঃখ, দারিদ্র্য, অন্ধকার ঘুচিয়ে তােমরা গড়ে তুলবে একটি সুখী, সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ। তােমরাই আনবে সােনালি ঊষার আলােকিত দিন। তােমাদের নতুন যাত্রাপথ নতুন নতুন সাফল্যে ভরে উঠুক, জীবন যােক সুন্দর ও সার্থক।” 

বিদায় অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে আলােচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়ােজন করা হয়। যাদের জন্য এ অনুষ্ঠানের আয়ােজন তাদের উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করে শােনানো হয়। বিদায়ী ছাত্রছাত্রীরা তাদের বক্তব্যে বিভিন্ন স্মৃতিচারণ করে। এ সময় এক আবেগময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল কবিতা আবৃতি, গান ও নৃত্য। বিদায়ী ছাত্রছাত্রীদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানাে হয় এবং প্রত্যেককে মিষ্টিমুখ করানাে হয়। অত্যন্ত উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিদায় অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। ছাত্রছাত্রীরা অত্যন্ত সুশৃঙ্খল ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে বিদায় অনুষ্ঠান পালন করে। উপস্থিত সুধীজনের মতে, এ ধরনের অনুষ্ঠান বিদ্যালয়ের ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখার পাশাপাশি শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মাঝে সৌহার্দ বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে।

প্রতিবেদকের নাম ও ঠিকানাঃ কাবেরি কবির, নবম শ্রেণি,  … স্কুল ও কলেজ
প্রতিবেদনের শিরােনামঃ …স্কুল ও কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান উদযাপিত
প্রতিবেদন তৈরির সময়ঃ  সকাল ৮ টা
তারিখঃ ৩ মার্চ, ২০২০


 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

মন্তব্য করুন

Back to top button