ইসলাম ও জীবনকুরআন

সূরা আলাক (Surah Al-Alaq) বাংলা উচ্চারণ ও অর্থ

4.7/5 - (32 votes)

সূরা আলাক (Surah Al-Alaq – আরবি ভাষায়: العلق) পবিত্র কুরআনের ৯৬ তম সূরা। আয়াত সংখ্যা ১৯। সূরাটি মক্কায় অবতীর্ণ হয় তাই সূরাটি মাক্কী সূরার অন্তর্ভুক্ত। আলাক শব্দের অর্থ হল “জমাট বাধা রক্ত”। সূরাটির ১৯ তম আয়াতে সিজদাহ রয়েছে।

←পূর্ববর্তী সূরা: সূরা ত্বীন এবং পরবর্তী সূরাঃ → সূরা ক্বদর

সূরাটিতে মহান আল্লাহ্‌ খুবই সুস্পষ্টভাবে বলেছেন মানুষকে কি থেকে সৃষ্টি করা হয়েছে। সূরাটির ২য় আয়াতে বলা হয়েছে আল্লাহ্‌ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন জমাট বাঁধা রক্তের দলা থেকে। আর সম্প্রতি বিজ্ঞান সেটা আবিষ্কার করেছে। 

পবিত্র কুরআনের প্রথম সূরা আল ফাতিহা হলেও, সর্বপ্রথম যে আয়াত নাযিল হয়েছে তা হল সূরা আলাকের প্রথম পাঁচ আয়াত। মুলত এই পাঁচ আয়াত দিয়েই ওহির সূচনা হয়েছিল হেরা গুহায় হযরত মুহাম্মদ (সঃ) উপর। সূরাটিতে প্রথমেই বলা হয়েছে পড়ো (হে নবী), তোমার রবের নামে। এরপর আল্লাহ্‌ নিজের একটি গুনের নাম বলেছেন আর তা হল “মেহেরবান”। এবং বলছেন মানুষকে কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন সে আগে জানতো না। এখানে আদম (আঃ) এর কথা বলা হয়েছে। পরবর্তী সময় এ বিষয় নিয়ে একটা পোস্ট করবো ইনশাআল্লাহ্‌।

সূরা আলাক বাংলা উচ্চারণ

بِسْمِ اللّهِ الرَّحْمـَنِ الرَّحِيمِ
শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।
(১
اقْرَأْ بِاسْمِ رَبِّكَ الَّذِي خَلَقَ
উচ্চারণঃ ইকরা বিছমি রাব্বিকাল্লাযী খালাক।
অর্থঃ পাঠ করুন আপনার পালনকর্তার নামে যিনি সৃষ্টি করেছেন
(২
خَلَقَ الْإِنسَانَ مِنْ عَلَقٍ
উচ্চারণঃ খালাকাল ইনছা-না মিন ‘আলাক।
অর্থঃ সৃষ্টি করেছেন মানুষকে জমাট রক্ত থেকে।
(৩
اقْرَأْ وَرَبُّكَ الْأَكْرَمُ
উচ্চারণঃ ইকরা’ ওয়া রাব্বুকাল আকরাম
অর্থঃ পাঠ করুন, আপনার পালনকর্তা মহা দয়ালু,
(৪
الَّذِي عَلَّمَ بِالْقَلَمِ
উচ্চারণঃ অল্লাযী ‘আল্লামা বিলকালাম।
অর্থঃ যিনি কলমের মাধ্যমে শিক্ষা দিয়েছেন
(৫
عَلَّمَ الْإِنسَانَ مَا لَمْ يَعْلَمْ
উচ্চারণঃ ‘আল্লামাল ইনছা-না-মা-লাম ইয়া’লাম।
অর্থঃ শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না।
(৬
كَلَّا إِنَّ الْإِنسَانَ لَيَطْغَى
উচ্চারণঃ কাল্লাইন্নাল ইনছা-না লাইয়াতগা।
অর্থঃ সত্যি সত্যি মানুষ সীমালংঘন করে
(৭
أَن رَّآهُ اسْتَغْنَى
উচ্চারণঃ আররাআ-হুছ তাগনা-।
অর্থঃ এ কারণে যে, সে নিজেকে অভাবমুক্ত মনে করে।

(৮
إِنَّ إِلَى رَبِّكَ الرُّجْعَى
উচ্চারণঃ ইন্না ইলা-রাব্বিকার রুজ’আ-।
অর্থঃ নিশ্চয় আপনার পালনকর্তার দিকেই প্রত্যাবর্তন হবে।
(৯
أَرَأَيْتَ الَّذِي يَنْهَى
উচ্চারণঃ আরাআইতাল্লাযী ইয়ানহা-
অর্থঃ আপনি কি তাকে দেখেছেন, যে নিষেধ করে
(১০
عَبْدًا إِذَا صَلَّى
উচ্চারণঃ ‘আবদান ইযা-সাল্লা-।
অর্থঃ এক বান্দাকে যখন সে নামায পড়ে?
(১১
أَرَأَيْتَ إِن كَانَ عَلَى الْهُدَى
উচ্চারণঃ আরাআইতা ইন কা-না ‘আলাল হুদা।
অর্থঃ আপনি কি দেখেছেন যদি সে সৎপথে থাকে।
(১২
أَوْ أَمَرَ بِالتَّقْوَى
উচ্চারণঃ আও আমারা বিত্তাকাওয়া-।
অর্থঃ অথবা খোদাভীতি শিক্ষা দেয়।
(১৩
أَرَأَيْتَ إِن كَذَّبَ وَتَوَلَّى
উচ্চারণঃ আরাআইতা ইন কাযযাবা ওয়া তাওয়াল্লা-।
অর্থঃ আপনি কি দেখেছেন, যদি সে মিথ্যারোপ করে ও মুখ ফিরিয়ে নেয়।
(১৪
أَلَمْ يَعْلَمْ بِأَنَّ اللَّهَ يَرَى
উচ্চারণঃ আলাম ইয়া‘লাম বিআন্নাল্লা-হা ইয়ারা-।
অর্থঃ সে কি জানে না যে, আল্লাহ দেখেন?
(১৫
كَلَّا لَئِن لَّمْ يَنتَهِ لَنَسْفَعًا بِالنَّاصِيَةِ
উচ্চারণঃ কাল্লা-লাইল্লাম ইয়ানতাহি লানাছফা’আম বিন্না-সিয়াহ।
অর্থঃ কখনই নয়, যদি সে বিরত না হয়, তবে আমি মস্তকের সামনের কেশগুচ্ছ ধরে হেঁচড়াবই-
(১৬
نَاصِيَةٍ كَاذِبَةٍ خَاطِئَةٍ
উচ্চারণঃ না-সিয়াতিন কা-যিবাতিন খা-তিআহ।
অর্থঃ মিথ্যাচারী, পাপীর কেশগুচ্ছ।
(১৭
فَلْيَدْعُ نَادِيَه
উচ্চারণঃ ফালইয়াদ’উ নাদিয়াহ,
অর্থঃ অতএব, সে তার সভাসদদেরকে আহবান করুক।
(১৮
سَنَدْعُ الزَّبَانِيَةَ
উচ্চারণঃ ছানাদ’উঝঝাবা-নিয়াহ।
অর্থঃ আমিও আহবান করব জাহান্নামের প্রহরীদেরকে
(১৯
كَلَّا لَا تُطِعْهُ وَاسْجُدْ وَاقْتَرِبْ
উচ্চারণঃ কাল্লা- লা-তুতি’হু ওয়াছজু দ ওয়াকতারিব (ছিজদাহ-১৪)
অর্থঃ কখনই নয়, আপনি তার আনুগত্য করবেন না। আপনি সেজদা করুন ও আমার নৈকট্য অর্জন করুন।

সূরা আলাক অডিও


 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

মন্তব্য করুন

Related Articles

Back to top button