Uncategorized

প্রতিবেদন: পরীক্ষাকেন্দ্রে গােলযােগ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন

Rate this post

কলেজ অধ্যক্ষের বরাবরে পরীক্ষাকেন্দ্রে গােলযােগ সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন রচনা কর

বরাবর
অধ্যক্ষ,
সরকারি এম.এম. কলেজ
যশাের।

বিষয় : পরীক্ষাকেন্দ্রে গোেলযােগ সম্পর্কে প্রতিবেদন।

গত ২১.০৪.১৬ তারিখে অনুষ্ঠিত ইংরেজি ২য় পত্র পরীক্ষা চলাকালীন কেন্দ্রে সংঘটিত গােলযােগ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যানুসন্ধান করেছি। ঘটনা সম্পর্কে পরীক্ষার্থী, প্রত্যবেক্ষক ও কর্মচারীদের বক্তব্য ও সাক্ষ্য প্রমাণাদি গ্রহণ করে নিম্নোক্ত তথ্য অবগত হয়েছি :
ক। ক. উক্ত দিন সকাল ১০টায় ইংরেজি ২য় পত্র পরীক্ষা শুরু হলে ১০ঃ০৫ মিনিটে পরীক্ষার্থীরা প্রশ্নপত্র কঠিন হয়েছে বলে হইচই শুরু করে। প্রশ্নে পাঠ্যসূচি বহির্ভূত প্রশ্ন আছে বলে তারা অভিযােগ করে এবং কতিপয় ছাত্র ১০ঃ১৫ মিনিটে
কক্ষ পরিত্যাগ করে।
খ। পরীক্ষা কক্ষে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রত্যবেক্ষকগণ ছাত্রদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। তাঁদের চেষ্টায় পরিস্থিতি শান্ত হয় এবং ছাত্ররা পুনরায় কক্ষে ফিরে আসে।
গ। এই গােলযােগে ১৫ মিনিট নষ্ট হয়েছে বলে হল তত্ত্বাবধায়ক পরীক্ষার শেষে ১৫ মিনিট সময় বৃদ্ধি করেন।
ঘ। ঘটনাটি আকস্মিক ও অনভিপ্রেত। প্রশ্নপত্র পাঠ্যসূচি বহির্ভূত সেটা ঠিক নয়। মূলত ছাত্ররা বই পড়ে না এবং প্রশ্ন বুঝে না বলে এমন অযৌক্তিক অভিযােগ করেছিল। সাম্প্রতিক সময়ে ছাত্রসমাজ অস্থিরতার মধ্যে বসবাস করছে যা আমাদের জাতীয় রাজনীতিরই অংশ চিত্র। ফলে তারা পড়াশেনায় অমনোেযাগী হয়েছে।
ঙ। অবৈধ পন্থা অবলম্বনে সুযােগ সন্ধানী ছাত্ররা ঘটনাটিতে ইন্ধন দিয়েছে। যাতে করে গােলযােগের সুযােগে নকল করা যায়। ঘটনাটি অনভিপ্রেত।
চ। এ গােলযােগের জন্যে নির্দিষ্ট কাউকে দায়ী করা যায় না। তবে ভবিষ্যতে কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে অধিক সচেতন থাকতে হবে, নতুবা ঘটনার পুনরাবৃত্তির আশঙ্কা আছে।
আপনার বিশ্বস্ত
‘ব’
মহাঃ জিয়াউল হক |
প্রভাষক, ইতিহাস

 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

মন্তব্য করুন

Back to top button