Uncategorized

অষ্টম শ্রেণি বাংলা (Bangla) | নবম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ এর উত্তর

Rate this post

অষ্টম শ্রেণি বাংলা নবম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ এর উত্তর। Class Eight Bangla 9th week Assignment 2021 Answer

অষ্টম শ্রেণি বাংলা (Bangla) | নবম সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১ এর উত্তর

বর্ণনাধর্মী গদ্যে রুপান্তর। বিদীর্ণ হিয়া ফিরিয়া ফিরিয়া চারি দিকে চেয়ে দেখি……..ঝুঁটি-বাঁধা উড়ে সপ্তম সুরে পাড়িতে লাগিল গালি।“দুই বিঘা জমি” কবিতাটির উক্ত পঙুক্তিগুলো (৪৯-৬২) গদ্যে রূপান্তর

নির্ধারিত কাজ

বর্ণনাধর্মী গদ্যে রুপান্তর

বিদীর্ণ হিয়া ফিরিয়া ফিরিয়া চারি দিকে চেয়ে দেখি……..

ঝুঁটি-বাঁধা উড়ে সপ্তম সুরে পাড়িতে লাগিল গালি।

দুই বিঘা জমি” কবিতাটির উক্ত পঙুক্তিগুলো (৪৯-৬২) গদ্যে রূপান্তর

নমুনা উত্তর 

“দুই বিঘা জমি” রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি ব্যঙ্গাত্মক কবিতা। কবিতাটি রবীন্দ্রনাথের “চিত্রা” নামক কাব্যগ্রন্থ থেকে সংকলিত করা হয়েছে। বাংলার গ্রামীণ সমাজের শ্রেণীবিভেদ আর দুর্বলের উপর সবলের অনাচার-অবিচার নিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কবিতাটি লিখেছেন। এই কবিতায় গরীব শ্রেণীর অসহায়ত্বের দিক দেখানো হয়েছে। 

উপেন, একজন গরিব কৃষক। তার যে জমি জমা ছিল, তার মধ্যে দুই বিঘা জমি ছাড় সব ঋণের দায়ে তাকে হারাতে হয়েছে। তার সম্বল এখন ভিটেমাটির ওই দুই বিঘা জমি। কিন্তু উপেনের ভাগ্য কখনই তাকে সঙ্গ দেয়নি। জমিদারবাবুর এত জমি থাকা সত্ত্বেও নজর পড়ে উপেনের ওই দুই বিঘা জমির উপর। বাবু উপেনের জমি কিনতে চান। উপেন বলে, “এই দেশের মালিক আপনি, জায়গার অভাব নেই কিন্তু আমার এই জায়গাটি ছাড়া ঠাঁই নেই।” উপেন দুই হাত জোড় করে বাবুর কাছে মিনতি করল তার জমিটি যেন না নেয়। এতে বাবু রেগে গিয়ে চোখ গরম করে চুপ করে থাকেন। মাসের প মাস মিথ্যে ঋণের দায়ে উপেনের প্রতি আদালতের হুকুম জারি করা হল। ঋণের দায়ে উপেনের জমি বিক্রি হয়ে গেল। সেই সম্বল ভিটেমাটি হারিয়ে উপেন নিঃস্ব হয়ে ঘুরতে লাগলো। এভাবে অনেক বছর কেটে যায়। অনেক তীর্থস্থান, শহর-গ্রাম সে বিচরণ করে কিন্তু উপেন তার দুই বিঘা জমির কথা ভুলতে পারেনা। তাই মাতৃভূমির টানে উপেন একদিন নিজ গ্রামে ফিরে আসে। গ্রামে এসে নিজ বাড়ির সামনে এসে দেখে সেখানে আগের কোনাে চিহ্ন নেই। উপেনের মন বিষন্ন হয়ে পড়ে। নিজ বাড়িতে এসে সে স্মৃতি কাতর হয়ে পড়ে। তার চোখ জলে ভরে যায়। অবশেষে তার চোখে পড়ে ছেলেবেলার সেই আমগাছটি। স্মৃতিময় সেই আমগাছটি দেখে তার সব দুঃখ দূর হয়ে যায়। ক্ষুদার্থ উপেন আম গাছের নিচে বসে সে তার ছেলেবেলার কথা ভাবতে থাকে। এমন সময় তার কোলের কাছে দুটি আম ঝরে পড়ে। উপেন ভাবে আমগাছটি তাকে চিনতে পেরে দুটি আম উপহার দিয়েছে। কিন্তু আম দুটি হাতে নিতেই বাগানের মালি লাঠি নিয়ে হাজির। মালিকে উপেন বলল, আমি তো নীরবে আমার সব দিয়েছি। এই আম দুটি না হয় আমার অধিকার মনে করেই নিলাম। কিন্তু মালি উপেনকে চিনতে পারলো না। গালিগালাজ করে উপেনকে ধরে বাবুর কাছে নিয়ে যায়। মালির কাছ থেকে সব শুনে বাবুও উপেনকে গালি দিল। তাকে মারতে চাইল। উপেন হাতজোড় করে বাবুর কাছে আম দুটি ভিক্ষা চাইল। কিন্তু বাবু উপেনকে সাধুবেশে চোর বলে সম্বােধন করে। বাবুর এমন কথা শুনে উপেনের দুচোখ বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়ল। বহু বছর আগে যেমন বাবু উপেনের সব কেড়ে নিয়েছিল, আজও প্রকৃতির দেওয়া উপহার দুটি আমও উপেনের ভাগ্যে জুটল না। 

এভাবে সমাজে অনেক উপেন শোষণের স্বীকার। ক্ষমতাধর লোভী অত্যাচারী শাসকের রক্তচক্ষুর শাসানির যাতাকলে পরে অনেক উপেনকে হতে হয় ভিটামাটি ছাড়া , পেতে হলে অপবাধ, লাঞ্ছনা। সমাজের প্রভাবশালী মানুষ গরীব দুঃখী খেটে খাওয়া মানুষদের ধন সম্পদ আত্মসাৎ করে ধনী হয়। তাই তাদের সম্পদের প্রতি লােভের কারণে তারা নিজেদের মানবতাকে বিসর্জন দিয়ে মিথ্যার আশ্রয় নিতেও দ্বিধা করে না।


 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

মন্তব্য করুন

Back to top button