স্বাস্থ্য কথা

প্রচণ্ড গরমে হিট স্ট্রোক এড়াতে যা করণীয়

Rate this post
প্রচণ্ড গরমে হিট স্ট্রোক এড়াতে যা করণীয়
এই গরমে নিজেকে সুস্থ রাখতে যা করবেন। 

অসহনীয় গরম থেকে রেহাই নেই। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে সামনে তাপমত্রা আরও বাড়তে পারে।বৃষ্টি কবে মিলবে তা এখনই বলা মুশকিল। এমন পরিস্থিতিতে ঘর থেকে বের হওয়া অনেক দূরের ব্যাপার। এমন অসহ্য গরমে শরীর খারাপ হতে পারে। বাইরের তীব্র গরমে অনেকেই অসুস্থ বোধ করতে পারেন। হিট স্ট্রোকের সম্ভাবনাও থাকে। এমন পরিস্থিতিতে কীভাবে নিজেকে সুস্থ রাখতে হবে তা জানতে হবে।

প্রচণ্ড গরমে যে সব উপসর্গ দেখা দিতে পারে

 ১। রোদে শরীর শুকিয়ে গেলে বা গরমে চেতনা হারাতে পারে। এছাড়া জ্বর ১০২ ডিগ্রির কাছাকাছি আসতে পারে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফোলাভাব হতে পারে।

২। ঘন ঘন শ্বাসকষ্ট, অত্যধিক ঘাম, বমি বমি ভাব বা বমি হওয়া, মাথাব্যথা, শরীররে ক্লান্তি ভাব হতে পারে

৩। হিট স্ট্রোক শরীরের তাপমাত্রা ১০৪ ডিগ্রির কাছাকাছি নিয়ে আসতে পারে। রোগী চেতনা হারাতে পারে। অবস্থার অবনতি হলে রোগী কোমায় চলে যেতে পারে বা মারাও যেতে পারে।

প্রচণ্ড গরমে হিট স্ট্রোক এড়াতে যা করণীয়
শরীরকে সতেজ রাখতে গরমে প্রচুর পানি পান করুন

কিভাবে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন?

১। সম্ভব হলে দুপুর ১২টা থেকে ৩টার মধ্যে বাড়ির বাইরে যাবেন না। ঘরের ভিতর থেকে কাজ করুন। এ সময় সূর্যের তাপ সবচেয়ে বেশি থাকে।

২। সারাদিন প্রচুর পানি পান করুন। শরীর শুকিয়ে যেতে দেবেন না।

৩। হালকা সুতির পোশাক পরুন যাতে ঘাম হলে তা দ্রুত শুকিয়ে যায়। ঢাকা জুতার পরিবর্তে খোলা স্যান্ডেল পরুন।

৪। আপনি যখন বাইরে যান, আপনাকে অবশ্যই আপনার সাথে সানগ্লাস এবং ছাতা নিতে হবে। র্যের আলো সরাসরি গায়ে লাগতে দেবেন না। শরীর ঢেকে রাখে এমন পোশাক পরুন।

৫। সর্বাধিক তাপমাত্রার সময়ে শরীরচর্চা বা অতিরিক্ত ক্লান্তিকর কোনও রকম কাজ এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। দুপুর ১২টার আগে কাজ সেরে ফেলুন।

৬। প্রচণ্ড গরমে অনেকেই প্রচুর বিয়ার, সোডা বা কোমল পানীয় পান করেন। এতে পানিশূন্যতার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। খুব বেশি চা বা কফি পান করবেন না।

৭। স্যালাইন, লেবুর জল, বেলের শরবত বানিয়ে খেতে পারেন।

৮। সারাদিনের ডায়েটে প্রচুর প্রোটিন আছে কিনা তা নিশ্চিত করুন। বাসি খাবার খাবেন না

৯। শিশু বা পোষ্যদের বন্ধ গা়ড়িতে রেখে কোথাও যাবেন না। গরমে অসুস্থ হয়ে পড়বে তারা। খুব বেশি ক্ষণ বন্ধ গাড়িতে থাকলে গরমে জ্ঞান হারিয়ে ফেলতে পারে।

১০। যদি আপনি অসুস্থ বোধ করেন, অবিলম্বে একজন ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

১১। দিনে ২ থেকে ৩ বার ঠান্ডা পানিতে গোসল করতে পারেন।

১২। ঘর ঠান্ডা রাখুন. এয়ার কন্ডিশনার ঘরে না থাকলে ভারী পর্দা দিয়ে ঘর ঠান্ডা রাখুন। পাখার নিচে ঠান্ডা পানির পাত্রে কয়েক টুকরো বরফ রাখতে পারেন।


 এই রকম আরও তথ্য পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন। এর পাশাপাশি গুগল নিউজে আমাদের ফলো করুন। 

Google News

Rimon

This is RIMON Proud owner of this blog. An employee by profession but proud to introduce myself as a blogger. I like to write on the blog. Moreover, I've a lot of interest in web design. I want to see myself as a successful blogger and SEO expert.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Articles

Back to top button